কাজের লোক – নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্য | মৌমাছি কবিতা

মৌমাছি কবিতা – “কাজের লোক” কবিতাটি বিখ্যাত শিশু সাহিত্যিক “নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্য” এর লিখা। কবির মতো মৌমাছি বললেই অবধারিতভাবে আমাদের ভাবনায় প্রথমেই চলে আসে মধু! অথচ ছোট্ট এই পতঙ্গটি বিশ্বসংসার তথা মানবসভ্যতা টিকিয়ে রাখতে প্রতিনিয়ত যে অসামান্য অবদান রেখে চলেছে মধু তার কাছে নস্যি!

 

মৌমাছি কবিতা কাজের লোক - নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্য

 

নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্য (Navkrishna Bhattacharya) শিশু সাহিত্যিক নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্য ১৮৫৯ খ্রিস্টাব্দে  আমতায়, হাওড়ার নারিটে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর রচিত উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলি হল ছবির ছড়া, বালক পাঠ, কবিতা কুসুম, সুখবোধ ব্যাকরণ, ছেলেখেলা ইত্যাদি। তিনি সখা পত্রিকার সম্পাদক এবং মাসিক বসুমতী পত্রিকার সহসম্পাদক ছিলেন। ১৮৩৯ খ্রিস্টাব্দে নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্যের মৃত্যু হয়।

নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্য (Navkrishna Bhattacharya) শিশু-সাহিত্যিক হিসেবে তিনি খ্যাতি পেয়েছিলেন। তাঁর রচনার মধ্যে রয়েছে “শিশুরঞ্জন রামায়ণ” (১৮৯১), “ছেলেখেলা” (১৮৯৮), “টুকটুকে রামায়ণ” (১৯১০), “পুষ্পাঞ্জলী” (১৯৩৪), “ছবির ছড়া” (১৯৩৬) প্রভৃতি। তাঁর জনপ্রিয় বিখ্যাত কবিতার মধ্যে রয়েছে “গোকুলে মধু ফুরায়ে গেল আঁধার আজি কুঞ্জবন”, “মৌমাছি মৌমাছি কোথা যাও নাচি নাচি” প্রভৃতি।

 

মৌমাছি কবিতা

কাজের লোক – নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্য

 

মৌমাছি, মৌমাছি
কোথা যাও নাচি নাচি
দাঁড়াও না একবার ভাই।

ওই ফুল ফোটে বনে
যাই মধু আহরণে
দাঁড়াবার সময় তো নাই।ছোট পাখি, ছোট পাখি
কিচিমিচি ডাকি ডাকি
কোথা যাও বলে যাও শুনি।

এখন না কব কথা
আনিয়াছি তৃণলতা
আপনার বাসা আগে বুনি।পিপীলিকা, পিপীলিকা
দলবল ছাড়ি একা
কোথা যাও, যাও ভাই বলি।

শীতের সঞ্চয় চাই
খাদ্য খুঁজিতেছি তাই
ছয় পায়ে পিলপিল চলি।
নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্য 1 কাজের লোক - নবকৃষ্ণ ভট্টাচার্য | মৌমাছি কবিতা

কাজের লোক কবিতা আবৃত্তিঃ

মন্তব্য করুন