স্বাধীনতার সুখ কবিতা – রজনীকান্ত সেন

স্বাধীনতার সুখ কবিতা – কবিতাটি বিখ্যাত গিতিকার রজনীকান্ত সেন এর লিখা।

 

রজনীকান্ত সেন 2 স্বাধীনতার সুখ কবিতা - রজনীকান্ত সেন

 

 

রজনীকান্ত সেন (২৬ জুলাই, ১৮৬৫ – ১৩ সেপ্টেম্বর, ১৯১০) প্রখ্যাত কবি, গীতিকার এবং সুরকার হিসেবে বাঙালি শিক্ষা-সংস্কৃতিতে চিরস্মরণীয় হয়ে আছেন। দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের সমসাময়িক এই গীতিকারের গানগুলো খুবই জনপ্রিয়। ঈশ্বরের আরাধনায় ভক্তিমূলক ও দেশের প্রতি গভীর মমত্ববোধ বা স্বদেশ প্রেমই তাঁর গানের প্রধান বৈশিষ্ট্য ও উপজীব্য বিষয়।

তিনি হিরন্ময়ী দেবী নাম্নী এক বিদূষী নারীকে ১৮৮৩ সালে (৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১২৯০ বঙ্গাব্দ) বিবাহ করেন। হিরন্ময়ী দেবী রজনী’র লেখা কবিতাগুলো নিয়ে আলোচনা করতেন। কখনো কখনো তার কবিতার বিষয়বস্তু সম্পর্কে মতামত ও সমালোচনা ব্যক্ত করতেন। তাদের সংসারে পাঁচ পুত্র – শচীন্দ্র”, “জ্ঞানেন্দ্র”, “ভুপেন্দ্র, “ক্ষিতীন্দ্র” ও শৈলেন্দ্র এবং চার কন্যা – শতদলবাসিনী, শান্তিবালা, “প্রীতিলতা” ও “তৃপ্তিবালা” ছিল। কিন্তু পুত্র ভুপেন্দ্র ও কন্যা শতদলবাসিনী খুব অল্প বয়সেই মারা যায়।

কবি হিসেবেও যথেষ্ট সুখ্যাতি অর্জন করেছিলেন রজনীকান্ত সেন। নির্মল আবেগ ও কোমল সুরের ব্যঞ্জনায় তার গান ও কবিতাগুলো হয়েছে ঋদ্ধ ও সমৃদ্ধ।

 

 

স্বাধীনতার সুখ কবিতা – রজনীকান্ত সেন

 

বাবুই পাখিরে ডাকি, বলিছে চড়াই-
“কুঁড়ে ঘরে থেকে কর শিল্পের বড়াই;
আমি থাকি মহাসুখে অট্টালিকা ‘পরে,
তুমি কত কষ্ট পাও রোদ, বৃষ্টি, ঝড়ে।”
বাবুই হাসিয়া কহে- “সন্দেহ কি তায়?
কষ্ট পাই, তবু থাকি নিজের বাসায়;
পাকা হোক, তবু ভাই, পরের ও বাসা,
নিজ হাতে গড়া মোর কাঁচা ঘর, খাসা।”

 

স্বাধীনতার সুখ কবিতা - রজনীকান্ত সেন
স্বাধীনতার সুখ কবিতা – রজনীকান্ত সেন

 

 

স্বাধীনতার সুখ কবিতা আবৃত্তিঃ

 

 

আরও দেখুনঃ

Competitive Exams Preparation Gurukul, GOLN Logo [ প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার প্রস্তুতি গুরুকুল, লোগো ]

মন্তব্য করুন